চকরিয়ায় খুটাখালীতে সৌদিয়া সিএনজি মুখোমুখি সংঘর্ষে পিতা পুত্র নিহত, আহত-৩

আবদুল মজিদ,চকরিয়া:
স্বপরিবারে বাড়ি ফেরার পথে সৌদিয়া-সিএনজি মুখোমুখি সংঘর্ষে একই পরিবারের দুইজন নিহত ও তিনজন গুরুত্বর আহত হয়েছে। আহতদের মুমুর্ষ অবস্থায় চট্রগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। মঙ্গলবার (১৭ ডিসেম্বর) রাত সাড়ে ১২ টার সময় চকরিয়া উপজেলার খুটাখালী মইক্ক্যাঘোনা এলাকায় ঘটে এ দুর্ঘটনা। দুর্ঘটনায় নিহতরা হলেন বর্নিত ইউনিয়নের হেতালিয়া পাহাড় গ্রামের মৃত ছাবের আহমদের পুত্র সিএনজি চালক নুরুল আলম প্রকাশ নুরু(৩২), তার পুত্র মনুর আলম(৮)। সে জলিলিয়া ইবতেদায়ী মাদরাসার তৃতীয় শ্রেনীর ছাত্র বলে জানা গেছে।
দুর্ঘটনায় গুরুত্বর আহত হয়েছে সিএনজি চালক নুরুর স্ত্রী ময়কুন নাহার(২২), তার ছোট পুত্র আবদু রহিম ও নুরুর মামাত ভাই নুরুল আলম। তাদের মুমুর্ষ অবস্থায় স্থানীয়রা উদ্ধার করে চট্রগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন। তাদের মধ্যে মা ছেলের অবস্থা আশংকাজনক বলে জানা গেছে। খবর পেয়ে মালুমঘাট হাইওয়ে পুলিশ দুর্ঘটনাস্থল থেকে গাড়ি দুটি জব্ধ করেছেন।
প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে জানা গেছে, সিএনজি চালক নুরু এদিন রাতে স্বপরিবারে বাড়ি ফিরছিলেন। পথিমধ্যে তার নিকট আত্বীয় পুর্ব গর্জনতলী গ্রামের ছালেহ আহমদের ছেলে শফি আলমকে বাড়ি পৌঁছে দিতে মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১২ টার সময় মহাসড়কের মইক্ক্যাঘোনা এলাকায় যায়। এসময় নুরু শফি আলমকে গাড়ি থেকে নামিয়ে দিয়ে সিএনজি নিয়ে খুটাখালী বাজারের দিকে ফিরতে গিয়ে চট্রগ্রামমুখী দ্রুতগামী সৌদিয়া চেয়ার কোচের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এসময় সিএনজিটি দুমড়ে মুচড়ে গিয়ে সড়কের পশ্চিম পাশে এবং সৌদিয়া বাস পুর্ব পাশে খাদে পড়ে যায় এবং দুর্ঘটনাস্থলে পিতা পুত্র মৃত্যুবরন করেন। বাসের যাত্রীদের শোর চিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে এসে আহতদের উদ্ধার করেন। এসময় সিএনজি চালক নুরু ও তার পুত্র মনুর আলমের লাশ উদ্ধার করে হাইওয়ে পুলিশ।
খুটাখালী ইউপি’র ৩ নং ওয়ার্ড মেম্বার আবদুল আওয়াল জানান, স্বপরিবারে নুরু বাড়ি ফেরার পথে সড়ক দুর্ঘটনায় মারা গেছে। এ ঘটনায় তার বড় ছেলে মনুর আলম নিহত হয়েছে। গুরুত্বর আহত হয়ে হাসপাতালে রয়েছে তার স্ত্রী, ছোট ছেলে আবদু রহিম ও মামাত ভাই নুরুল আলম। একইদিন সকাল ১১ টার সময় পিতা পুত্রের জানাযা শেষে স্থানীয় কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে।
মালুমঘাট হাইওয়ে পুলিশ দুর্ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, নিহতদের লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। আহতদের হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। দুর্ঘটনা কবলিত গাড়ি দুটি পুলিশ হেফাজতে রয়েছে।##

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Application to the Ministry of Information for registration.